Story Line: The play has a zoology organisation that discovers a new, strange species of cow and catches it, and other organisations and scientists also chase after it, without concern for the nature.

নাটক কাহিনী: প্রাণীবিজ্ঞান সংস্থা ‘ওয়াইল্ড ভিশন’এর মূল দায়িত্ব বন আর বন্যপ্রাণী গবেষণা, সংরক্ষণ এবং তা বৃদ্ধিতে কাজ করা হলেও এক অদ্ভূত প্রজাতির ‘ট্যাঁশ গরু’র সন্ধান পাওয়া মাত্র তা ধরে নিয়ে আসা হয় কোম্পানীর প্রেসিডেন্ট ‘হারু’র নির্দেশে। এমন অদ্ভূত আর বিরল বন্যপ্রাণী’র সন্ধান ‘ওয়াইল্ড ভিশন’কে এনে দেয় খ্যাতি। খবর পেয়ে ছুটে আসে বন্যপ্রাণী ব্যবসায়ী ‘মিস হুকি’; সে আরও ট্যাঁশ গরু’র সন্ধান চায়। এরই মাঝে আরও অদ্ভূত বন্যপ্রাণী আর প্রকৃতি’র সন্ধান নিয়ে আসে বিখ্যাত গবেষক ‘প্রফেসর হেঁসোরাম হুঁশিয়ার’এর ভাগ্নে ‘চন্দ্রখাই’; সে নিজেও একজন বিজ্ঞানী, গবেষক এবং প্রকৃতিপ্রেমী। চন্দ্রখাইয়ের কাছে ‘প্রফেসর হেঁসোরাম হুঁশিয়ার’এর অদ্ভূত অভিযানের কাহিনী শুনে হারু আর মিস. হুকি রোমাঞ্চিত হতে থাকে, সাথে নতুন বিজনেসের ক্ষেত্র আবিষ্কার হচ্ছে ভেবে উৎফুল্লও হতে থাকে। তখন তারা অক্সিজেন, খাদ্যচক্র আর পরবর্তী প্রজন্মের কথা ভুলে স্বপ্ন দেখতে শুরু করে সবুজ প্রকৃতিকে ধূসর করে দেবার। আর চন্দ্রখাইও গল্পের ছলে পৌঁছুতে থাকে তার চূড়ান্ত উদ্দেশ্যে।